চাঁপাডাঙার বউ PDF রিভিউ | তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায় | Chapa Dangar Bou PDF

চাপাডাঙ্গার বউ pdf

গ্রন্থ: চাঁপাডাঙার বউ
লেখক: তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়

১৯৫৪ সালে প্রকাশিত হয় ‘চাঁপাডাঙার বউ’ উপন্যাসটি। এরপর দুই বাঙলাতেই এই লেখা নিয়ে নির্মিত হয়েছে চলচ্চিত্র। অনেক ছোট থাকতে বাপ্পারাজ অভিনীত ছবিটি দেখেছিলাম। কিছুই মনে নেই। উপন্যাস পড়েও মনে পড়লো না।

দক্ষিণ পাড়ার মন্ডল বাড়ির দুই বউ । বড় বউকে সবাই চাঁপাডাঙার বউ বলেই ডাকে। আর ছোট বউ মানদা। বড় বউয়ের ছেলেপুলে নেই। আর ছোট বউয়ের এক ছেলে মানিক।

সেতাব ও মহাতাপ দুই ভাই। বড় ভাই এর স্ত্রীর নাম কাদম্বিনী যার চাঁপাডাঙায় বাস ছিল বলে তাকে চাঁপাডাঙার বউ বলতো সকলে। ছোট ভাই মহাতাপ যে কিনা ছোটবেলায় টাইফয়েড এ পড়ে বোকা বুদ্ধিহীন তার স্ত্রীর নাম মানদা। তাদের একটি সন্তান আছে, যার নাম মানিক।

কাদম্বিনী নিঃসন্তান। মানিকই তাই তাদের সকলের প্রাণ। এ মহাতাপ বড় বউ ছাড়া কিছু বুঝে না। ,বড় বউ এর নিন্দে শুনলেই সে রেগে যায়। ‘মা’ তুল্য সম্মান ও শ্রদ্ধা করে সে। কিন্তু সমাজের এক চোখ খাটা মানুষদের নগ্ন চিন্তায় ভাবী-দেবর সম্পর্ককে নিয়ে তারা মুখরোচক গল্প ফাঁদে। সেতাব একটা সন্তান নেই বলে ব্যথাতুর থাকে। কুসঙ্গ- ঘোঁতনের সাথে মিশে সেও বউ আর ভাইয়ের ‘পর সন্দেহ আনে। সন্তানের আশার চেয়েও ক্রোধে জ্বলে সে পুঁটিকে বিয়ে করতে চায়। একসময় ভাইয়ে ভাইয়ে দ্বন্দ্ববিরোধ শুরু হয়। সম্পত্তি ভাগাভাগি হয়ে যায়।

কলঙ্ক থেকে মুক্তি পেতে কাদম্বিনী আত্মহত্যা করতে যায়। শেষে কী হয় জানতে হলে পড়তে হবে উপন্যাসটি।

আরও পড়ুনঃ কবি উপন্যাস তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায় PDF রিভিউ

দেবর-ভাবীর সম্পর্ককে ট্যারা চোখে দেখা নিয়ে সেই সময় থেকে এখন অবধি তো কম গল্প-উপন্যাস তো লেখা হলো না! এ নিয়ে আর নতুন করে কী-ই বা বলবো। নাটকীয় সমাপ্তি লাগতে পারে অনেকের কাছে কিন্তু ভালোই ভালোই বোধশক্তি এলেই তো মঙ্গল, অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে যাবার আগে, তাই নয় কি!
এখানে ব্যবহৃত গানের একটা লাইন খুব ভালো লাগলো-

‘ মারতে গিয়ে অমর হলাম জ্বলতে জ্বলন জ্বালাতে ‘

লিখেছেনঃ Kabbya Chowdhury

বইঃ চাঁপাডাঙার বউ [ Download PDF ]
লেখকঃ তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়

ইউটিউবে বইয়ের ফেরিওয়ালার বুক রিভিউ পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায় রচনাবলী PDF Download করুন

Facebook Comments

Leave a Reply